টানা বৃষ্টিতে মংলা বন্দরে পণ্য খালাস ব্যাহত

Mongla-Port-Shippingটানা বৃষ্টিপাত ও বৈরী আবহাওয়ার কারণে মংলা সমুদ্র বন্দরে পণ্য বোঝাই ও খালাসের কাজ মারাত্মক ভাবে ব্যাহত হচ্ছে।

বৃষ্টিপাতের করণে শুক্রবার (২৬ জুন) তৃতীয় দিনের মতো বন্ধ রয়েছে দেশের দ্বিতীয় প্রধান এ সমুদ্র বন্দরে জাহাজ থেকে পন্য খালাসের কাজ।

এদিকে প্রতিকুল আবহাওয়া ও পাঁচ দিন ধরে থেমে থেমে টানা বৃষ্টিতে সাগর ও উপকূলীয় নদ-নদী গুলো উত্তাল রয়েছে। ফলে (মাদার ভ্যাসেল থেকে) পণ্য খালাসের জন্য ব্যবহৃত লাইটারেজ জাহাজ চলাচলও ব্যাহত হচ্ছে।

মংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের পরিচালক (ট্রাফিক) গোলাম মোক্তাদির বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, বৃষ্টিপাতের করনে জাহাজে পণ্য বোঝাই ও খালাস কাজ বন্ধ রাখতে হচ্ছে। বর্তমানে মংলা বন্দরে পণ্য খালাসের অপেক্ষায় গম, কয়লা, সার ও ক্লিংকারবাহী (সিমেন্ট তৈরির কঁচামাল) মোট ১১টি জাহাজ অবস্থান করছে।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে গত তিনদিন ধরে বন্দরে অবস্থান করা এসব জাহাজ থেকে পণ্য খালাস করা যাচ্ছেনা। লাইটারেজ জাহাজ চলাচলও ব্যাহত হচ্ছে বলে জানান তিনি।

Bagerhat(sharonkhola)Pic-1(13-07-2014)আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, লঘুচাপে প্রভাবে সৃষ্ট এ দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে বঙ্গোপসাগর উত্তাল রয়েছে। বহাল রয়েছে তিন নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত।

এদিকে, প্রচন্ড ঢেউয়ের কারণে সাগরে মাছ ধরে যাওয়া ট্রলার গুলো টিকতে পারছেনা। চলতি ইলিশ আহরণ মৌসুমের শুরুতে বঙ্গোপসাগরে যাওয়া জেলেরা তাই আশ্রয় নিয়েছে সুন্দরবনসহ উপকূলীয় বিভিন্ন নদনদীতে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. কামাল আহমেদ জানান, উত্তাল সাগরে টিকতে না পেরে শত শত মাছ ধরা ট্রলার সুন্দরবনের কচিখালী, সুপতি, দুবলাচর, নারকেলবাড়িয়াসহ বনের ছোট ছোট বিভিন্ন নদী ও খালে আশ্রয় নিয়েছে।

আবহাওয়াবিদ মো. আবুল কালাম মোল্লা বলেন, দেশের আবহাওয়ায় মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় এবং বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর জলীয় বাষ্প চলে আসায় সারাদেশে প্রবল বৃষ্টিপাত হচ্ছে। কেবল বর্ষা মৌসুমের প্রথম সপ্তাহ পার হয়েছে, এখনও দেড় মাস স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হবে।

Signal-3তবে শনিবারের পর থেকে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে সারাদেশে থেমে থেমে যে বৃষ্টিপাত হচ্ছে, তা কমে আসবে বলে জানান মো. আবুল কালাম।

এদিকে আবহাওয়া দপ্তরের এক সতর্কবার্তায়- শুক্রবারও মংলা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে তিন (০৩) নম্বর স্থানীয় সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

একইসঙ্গে উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচলের জন্য বলা হয়েছে।

২৬ জুন ২০১৫ :: স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এস/আইএইচ/এনআরএ/বিআই
বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1265 Posts)