বাগেরহাট-মাওয়া মহাসড়কে নৈশ কোচে ডাকাতি

Roveryজেলার বাগেরহাট-মাওয়া মহাসড়কে পাথরঘাটাগামী গ্রামীণ পরিবহনের একটি নৈশ কোচে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ডাকাতদের ছুরিকাঘাতে এক যাত্রী আহত হন।

বুধবার (৬ এপ্রিল) ভোরে যাত্রীবেশী একদল ডাকাত বাসে উঠে অস্ত্রের মুখে যাত্রীদের জিম্মি করে নগদ টাকা ও মালামাল লুটে নেয়।

যাত্রীদের বরাত দিয়ে বাগেরহাটের পুলিশ সুপার (এসপি) মো. নিজামুল হক মোল্যা বলেন, গ্রামীণ পরিবহন নামে ওই নৈশ কোচটি মঙ্গলবার রাতে ঢাকা থেকে যাত্রী নিয়ে বরগুনা জেলার পাথলঘাটার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসে। যাত্রীবেশী একদল ডাকাত ওই কোচে ছিল। নৈশ কোচটি ভোরের দিকে বাগেরহাটের মোল্লাহাটে পৌঁছানোর পর চালক গাড়িটি থামিয়ে রাখে। এসময় কয়েকজন ডাকাত সেখান থেকে ওই নৈশ কোচে ওঠে।

‘৭-৮ জনের ওই ডাকাত দল মোল্লাহাট থেকেই চলন্ত গাড়িতে ডাকাতি শুরু করে এবং ডাকাতি শেষে পাশ্ববর্তী ফকিরহাট উপজেলার ঘোষপাড়া এলাকায় নেমে যায়।’

ডাকাতিতে বাঁধা দিতে গেলে তাদের ছুরিকাঘাতে আহত হন আব্দুল হক মাতব্বরকে (৪৫) নামে এক যাত্রী। তার বাড়ি পিরোজপুর জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলায়।

এদিকে এই ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ গ্রামীণ পরিবহনের চালক ও তার সহকারীকে (হেলপার) আটক করেছে।

পুলিশ জানায়, আটক নৈশকোচ চালক সুমন খাঁ (৩২) খুলনা জেলার খালিশপুর শিল্পনগরীর আলমনগর এলাকার সোবাহান খাঁর ছেলে এবং হেলপার তারেক মোল্লা (২৫) বাগেরহাটের মোল্লাহাট উপজেলার চেঙ্গারখালী গ্রামের তোরাব মোল্লার ছেলে।

এসপি বলেন, যাত্রীদের অভিযোগ ডাকাতির সঙ্গে নৈশ কোচের চালক ও হেলপার জড়িত। ডাকাতির এ ঘটনায় ওই নৈশ কোচের যাত্রী পিরোজপুরের আব্দুল হালিম বাদি হয়ে অজ্ঞাত পরিচয়ের কয়েক জনকে আসামি করে ফকিরহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

ফকিরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. বজলুর রহমান জানান, বাদি থানায় দায়েরকৃত এজাহারে উল্লেখ করেছেন ডাকাত দল যাত্রীদেরকে জিম্মি এবং মারধর করে নগদ টাকা ও মালামাল লুট করে নিয়েছে। লুন্ঠিত ওই টাকা ও মালামালের পরিমাণ দুই লাখ ৪৩ হাজার টাকা।

এ ঘটনায় গ্রামীণ পরিবহনের নৈশ কোচটি জব্দ করেছে পুলিশ। থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে চালক ও তার সহকারীকে।

০৬ এপ্রিল :: বিষ্ণু প্রসাদ চক্রবর্ত্তী,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এস/আইএইচ/এনআরএ/বিআই
বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1321 Posts)