বাগেরহাটে হোটেল কক্ষে পুলিশ কর্মকর্তার লাশ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

বাগেরহাট শহরে একটি আসাসিক হোটেল থেকে এক পুলিশ কর্মকর্তার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

রোববার (৪ জুন) বেলা সাড়ে ১২টার দিকে শহরের কেন্দ্রীয় বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন আল-আমিন হোটেল একটি কক্ষে মো. শহীদুজ্জামান আনসারীর (৫৭) লাশ পাওয়া যায়। গত তিন বছর ধরে তিনি সেখানে থাকতেন।

তিনি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) হিসেবে বাগেরহাট আদালতে কর্মরত ছিলেন। শহীদুজ্জামান গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার করপাড়া গ্রামের প্রয়াত ইসমাঈল হোসেন আনসারীর ছেলে। তিনি ১৯৭৯ সালে পুলিশের কনস্টেবল পদে যোগদান করেন।

বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, ২০১৪ সালে শহীদুজ্জামান বাগেরহাটের কর্মস্থলে আসেন। তখন থেকেই তিনি বাগেরহাটের ওই আসাসিক হোটেলের দ্বিতীয় তলার ১২ নাম্বার কক্ষে থাকতেন।

রোববার সকালে তিনি অফিসে না যাওয়ায় আদালতের পুলিশ পরিদর্শক বারবার ফোন দিতে থাকেন। তিনি ফোন রিসিভ না করায় পরিদর্শক তাকে খুঁজতে হোটেলে পুলিশ পাঠান।

আল-আমিন হোটেলের ম্যানেজার এমাদুল হক বলেন, শনিবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে খাওয়া দাওয়া শেষে তিনি তার কক্ষে ঘুমাতে যান। সকালে পুলিশ লোক তাকে ডাকতে হোটেলে আসেন। অনেক ডাকাডাকির পরেও দরজা না খোলায় রুমের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে তাকে বিছানায় দেখতে পান।

ওসি বলেন, ঘুমের মধ্যে ‎‎হ্নদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ওসি আরও বলেন, প্রায় এক মাস আগে তার স্ত্রী আসমা পারভীন শিমু সড়ক দূর্ঘটনায় মারা যান। এরপর থেকে এক ধরনের মানষিক চাপে ছিলেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা। মালিহা মেহবুবা নামে তার ১৫ বছর বয়সী একটি মেয়ে রয়েছে।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার পংকজ চন্দ্র রায় বলেন, বাগেরহাট পুলিশ লাইনে জানাযার নামাজ শেষে শহীদুজ্জামান আনসারীর মরদেহ তার গ্রামের বাড়িতে পাঠানো হবে।

এইচ//এসআই/বিআই/৪ জুন, ২০১৭

বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1251 Posts)