বাগেরহাটে ৪ ভেজাল মধু বিক্রেতার দন্ড

Bagerhat-Pic-2(22-09-14)বাগেরহাটে ভেজাল মধু তৈরি ও বিক্রির দায়ে ৪ যুবককে ৬ মাসের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার বিকালে বাগেরহাটের নির্বাহী ম্যাজিস্টেড শাহ্ মো. রফিকুল ইসলাম ওই দন্ড প্রদান করেন।

এর আগে বাগেরহাট-খুলনা মহাসড়কের ফকিরহাট উপজেলার কাটাখালী মোড়ের সুমন শেখ নামে এক ব্যক্তির ভাড়ার দোকান ঘর থেকে ভেজাল মধু তৈরীর সময়ে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি দল তাদের আটক করে।

বাগেরহাট জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপ-পরিদর্শক (এসআই) শেখ আশরাফ আলী বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে জানান, দণ্ডপ্রাপ্তরা দীর্ঘ দিন ধরে সুন্দরবনের মধু বলে ভেজাল মধু বিক্রির মাধ্যমে প্রতারণা করে আসছিলেন। গোপন সংবাদ পেয়ে কাটাখালী এলাকায় একটি ঘরে ভেজাল মধু তৈরি করার সময় ৪ যুবককে আটক করা হয়।

এসময় ওই ঘর থেকে ২০ কেজি মধু, একটি স্টোভ, কয়েকটি টিনের হাড়ি, প্লাস্টিকের বালতি ও মৌমাছির চাক উদ্ধার করা হয়।

তারা স্টোভে চিনি জ্বাল দিয়ে তাতে মধুর ঘ্রানযুক্ত রাসায়নিক মিশিয়ে বাগেরহাটসহ বিভিন্ন এলাকায় বিক্রি করে আসছিল বলে জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করেছে বলে জানান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

বাগেরহাটের নির্বাহী ম্যাজিস্টেড শাহ্ মো. রফিকুল ইসলাম বাগেহরট ইনফো ডটকমকে বলেন, পুলিশের হাতে আটক চার ব্যক্তিকে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এ আওতায় প্রত্যেককে ছয় মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে।

এ সময় কাটাখালী এলাকার সাধারণ মানুষ ওই চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দেন। তারা দীর্ঘদিন ধরে বাগেরহাটের বিভিন্ন এলাকায় ভেজাল মধু তৈরি ও বিক্রি করে আসছিল বলে সাক্ষিরা অভিযোগ করেন।

পরে তাদের বাগেরহাট জেলা কারাগারে পাঠানো হয় এবং ভেজাল মধু নষ্ট করা হয়।

দণ্ডিতরা হলেন- ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইল উপজেলার বিটঘর এলাকার মো. আমির হোসেনের ছেলে মো. জাকির হোসেন (৩০), সৈয়দটোলা গ্রামের এনাব আলীর ছেলে নওয়াব আলী (২৫) ও দুদ মিঞার ছেলে আব্দুর রহমান (২৫) এবং বিজয়নগর উপজেলার ডালফা গ্রামের সাঈদ মিঞার ছেলে রমজান মিঞা (৩৫)।

২২ সেপ্টেম্বর ২০১৪ :: স্টাফ করেসপন্ডেন্ট ,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এসআই হকনিউজরুম এডিটর/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)