রাজনীতি থেকে বাঁচতে…

দেশ জুড়ে চলা রাজনৈতিক অস্থিরতায় আতঙ্ক কাটছে না জনমনে। তাইতো সহিংসতা বা নাশকতা থেকে বাঁচতে হেলমেট পরে রিকশা চালাতে দেখা গেছে ফকরুল নামে এক যুবককে।

Bagerhat-Pic-1(22-01-2015)বৃহস্পতিবার দুপুরে বাগেরহাটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ সরকারি পিসি কলেজ প্রঙ্গণে হেলমেট পরে রিকশা চালাতে দেখা যায় তাকে। দুপুরে ক্লাস শেষ কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে বেশ কিছু শিক্ষার্থীর দৃষ্টি কাড়ে বিষয়টি।

১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের এক বছর পূর্তিকে কেন্দ্র করে চলমান রাজনৈতিক সংকট ও অস্থিতিশীল পরিস্থিতির সূচনা। ঢাকায় সমাবেশ করতে না দেওয়ায় ৫ জানুয়ারি থেকে বিএনপিসহ ২০দলীয় জোটের ডাকে অনির্দিষ্টকালের অবরোধ চলছে দেশ জুড়ে। সঙ্গে যুক্ত হয়েছে হরতাল।

আর অচল অবস্থার শুরু আরো দু’দিন আগে ৩ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া সরকারি অবরোধের সময় থেকে।

টানা অবরোধের প্রভাব পড়ছে সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষের জীবনযাপনে। যদিও রাজনীতিবিদরা প্রতিনিয়ত বলছেন, এ সাধারণ মানুষের জন্যই তাদের রাজনীতি। কিন্তু প্রতিনিয়ত তাদের নিসংশ রাজনীতির বলি হচ্ছে দেশের সাধারণ জনগণ।

কারো জন্য ক্ষমতা রক্ষা, আর কারো ক্ষমতায় যাবার জন্য রাজনীতিবীদদের এমন দ্বন্দ্ব আর সংঘাতে তাদের কিছু না হলেও, প্রান্তিক খেটে খাওয়া মানুষগুলো পড়েছে চরম বিপাকে। বিশেষ করে নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা যাদের, তাদের অবস্থা সবচেয়ে শোচনীয়।

বেচেঁ থাকতে হলে উপার্জন চাই। কারণ উপার্জন না হলে দু’বেলা আহার জোটেনা তাদের। তাই তো নাশকতা কিংবা নানা সঙ্কা থাকলেও জীবনের প্রয়োজনে পথে না বেরিয়ে উপায় নেই তাদের।

কিন্তু পথে বেরোলেই পেট্রল বোমা, ককটেল কিংবা হামলার শিকার হবার ভয় থেকে রক্ষা নেই তাদের কারোই।

তবে এমন ভয় নিয়ে ঘরে বসে থাকাও উপায় নেই তাদের। বেঁচে থাকাতে, উপার্জনের প্রয়োজনে পথে বের হতে হয় ফকরুলের মতোন রিকশা চালকদের। কারণ একদিন উপার্জন না হলে হাঁড়ি চলেনা তার ৭ সদস্যের পরিবারে। জোটেনা বৃদ্ধা মায়ের চিকিৎসার খরচ।

তাইতো চলমান পরিস্থিতিতে নিজের নিরাপত্তা আর অবরোধ হরতালকারীদের হামলা থেকে বাঁচতে মাথায় হেলমেট পরেই রিকশা চালাচ্ছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এমন মাথায় হেলমেট দিয়েই যাত্রী নিয়ে বাগেরহাটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠ সরকারি পিসি কলেজ প্রঙ্গণে যান রিকশা চালক ফকরুল। ক্লাস শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে বেশ কিছু শিক্ষার্থীর দৃষ্টি কাড়ে বিষয়টি।

এদের মধ্যে কলেজের ব্যবসায় শিক্ষা বিভাগের একাদশ শ্রেণীর ছাত্র সাইফুল ইসলাম নোবেল তার মোবাইলে ফ্রেম বন্দি করে হেলমেট পরে রিকশা চালানোর বিষয়টি।

রিকশা চালকের সঙ্গে কাথা বলা সাইফুল ইসলাম নামে ওই শিক্ষার্থী বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, মাথায় হেলমেট পরিহিত ওই চালকের নাম ফকরুল। আমি ছবি তুলতে গেলে তিনি একটু রেগে যান। আমাকে বলেন উপহাস করেন না। পেটের দায় আজ রিকশা চালাই। বাড়িতে অসুস্থ মা। বউ-বাচ্চা আর পরিবার দেখা লাগে।

কাজ না করলে খাব কি। আর কাজ করতি হলি তো আগে বাঁচাতি হবে।

কলেজ সংলগ্ন বাগেরহাট পৌর শহরের হরিণখানা এলাকার মিজান স্টোরের সত্ত্বাধীকারি মিজানুর রহমানেরও দৃষ্টি কাড়ে বিষয়টি।

চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা এবং অবরোধ-হরতালের সহিংসতার বিষয় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে তিনি বলেন, দু’দল সাধারণ মানুষের রইয়ে খেলা শুরু ওরিছে (খেলায় মেতেছে)। ক্ষমতার জন্নি (জন্য) পুড়ায় মারতিছে মানুষ জোন। আমরা শান্তি চাই, কাজ কইরে বাঁচতি চাই। এমন রাজনীতি আর আন্দোলন আমাগো লাগবে না।

২২ জানুয়ারি ২০১৫ :: স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এস/আই হক-এনআরএডিটর/বিআই
Inzamamul HaqueWriter: Inzamamul Haque (160 Posts)