যৌন হয়রানি, বাগেরহাট বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক গ্রেপ্তার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

শনিবার (২০ আগস্ট) দুপুরে এস এম হাসানুর রহমান জুয়েল (৩৮) নামে ওই শিক্ষককে বিদ্যালয় থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক হাসানুর রহমান জুয়েলের বিরুদ্ধে বাগেরহাট মডেল থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ১০ ধারায় একটি মামলা করেছেন ওই স্কুল শিক্ষার্থীর মা।

শহরের লিচুতলা এলাকার বাসিন্দা জুয়েল বাগেরহাট সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি ক্রিড়া শিক্ষক। তার গ্রামের বাড়ি জেলার মোরেলগঞ্জ উপজেলায়।

মেয়েটির মা অভিযোগ করে বলেন, ‘ওই শিক্ষক দীর্ঘদিন ধরে স্কুলের বিভিন্ন ক্লাসের মেয়েদের শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন করে আসছে। হয়রানির শিকার মেয়েরা অনেকে লোকলজ্জার ভয়ে মুখ খুলতে পারে না। কিন্তু আমার মেয়ের ওপর নির্যাতনের কথা শুনে আর চুপ থাকতে পারিনি।’

‘আজ আমার মেয়ের ওপর নির্যাতন চালিয়েছে কাল আরেজনের ওপর নির্যাতন চালাবে। আমার মেয়ের মতো আর কোনো শিশু শিক্ষার্থী যাতে যৌন হয়রানির শিকার না হয় এজন্য আমি ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

মামলার বরাত দিয়ে বাগেরহাট মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মিজানুর রহমান খান বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, শনিবার সকালে বাগেরহাট সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণীর এক শিক্ষার্থীকে হাসানুর রহমান জুয়েল পাশের একটি কক্ষে ডেকে নিয়ে যায়। এসময় ওই শিক্ষক মেয়েটিকে শারীরিক ভাবে নির্যাতনের চেষ্টা করে।

পরে ওই শিক্ষার্থী কক্ষ থেকে বেরিয়ে তার অভিভাবকদের জানালে তারা পুলিশের কাছে অভিযোগ করে। অভিযোগ পেয়ে আমরা তাকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছি।

বাগেরহাট সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপক রঞ্জন বিশ্বাস বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, আমরা মেয়েটির কাছ থেকে হাসানুর রহমান জুয়েলের বিরুদ্ধে অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে।

বিদ্যালয় কর্তিপক্ষও বিষয়টি তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেব।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদফতর, খুলনা অঞ্চলের পরিচালক (ডিডি) টিএম জাকির হোসেন বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, এ ধরণের ঘটনায় আমাদের অবস্থান ‘জিরো টলারেন্স’। অন্য কোন শিক্ষকের বিরুদ্ধেও অভিযোগ থাকলে তা তদন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এজি/এসআই/বিআই/২০ আগস্ট, ২০১৬

বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1301 Posts)