মংলা সাইলো ও ঘষিয়াখালী চ্যানেল উদ্বোধন বৃহস্পতিবার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

bagerhat-mongla-ghohasha-khali-and-siloপুনঃখনন শেষে বাগেরহাটের ‘মংলা-ঘষিয়াখালী’ নৌ-চ্যানেল এবং দেশের বৃহত্তম খাদ্যগুদাম ‘মংলা সাইলো’র উদ্বোধন বৃহস্পতিবার।

বৃহস্পতিবার (২৭ অক্টোবর) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সাইলো ও নৌ-চ্যানেলের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন।একই সঙ্গে নবনির্মিত ১১টি ড্রেজারও উদ্বোধন করবেন তিনি।

উদ্বোধনকালে নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান ও নৌ সচিব অশোক মাধব রায় গণভবনে এবং বিআইডব্লিউটএ’র চেয়ারম্যান কমডোর এম মোজাম্মেল হক বাগেরহাটে উপস্থিত থাকবেন।

বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী প্রকল্প দুটি উদ্বোধন করবেন।

মংলা সাইলো নির্মাণ প্রকল্পের উপ-প্রকল্প পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার বিমল ভূঁইয়া বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, দেশের দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের খাদ্য নিরাপত্তা জোরদার এবং জাহাজ থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে খাদ্যশস্য খালাসের মাধ্যমে অপচয় কমাতে আধুনিক এই কনক্রিট গ্রেইন সাইলো নির্মাণ কাজ শুরু হয় ২০১০ সালে।

জেটি ও অন্যান্য আনুষাঙ্গিক স্থাপনাসহ প্রকল্পটি নির্মাণে মোট ব্যায় হয়েছে ৫শ’ ৭৭ কোটি টাকা। যার মধ্যে ৩শ’ ৭৭ কোটি টাকা দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার এবং বাকি ২শ’ কেটি জাপানের জেডিসিএফ অর্থায়ন করেছে।

কোন প্রকার কিটনাশক ছাড়াই ৫ বছর এই গুদামে খাদ্যশস্য মজুদ রাখা যাবে বলে জানান তিনি।

বিআইডব্লিউটিএ’র তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এ এইচ এম ফরহাদুজ্জামান বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, ২০১১ সালের আগ পর্যন্ত মংলা বন্দরের আন্তর্জাতিক নৌ-রুট  মংলা–ঘষিয়াখালী চ্যানেলটি সচল থাকলেও পরবর্তিতে পলি জমে ভরাট হয়ে যায়।

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ২০১৪ সালের জুলাই থেকে নৌ-চ্যানেলটি পুনরায় নৌযান চলাচল উপযোগী নাব্য করতে খনন কাজ শুরু করে বিআইডব্লিউটিএ।

জেলা প্রশাসক তপন কুমার বিশ্বাস বলেন, সাইলো এবং নৌ-চ্যানেল দুটি প্রকল্পই এই অঞ্চলের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মংলা সাইলোর কার্যক্রম চালু হলে এই অঞ্চলের খাদ্য ব্যবস্থাপনায় গতি আসবে

আধুনিক এই সাইলোতে যান্ত্রিক উপায়ে খাদ্য খালাসের ব্যবস্থা থাকায় অপচয় এবং খরচ কমবে। সাইলোর মতো মংলা-ঘষিয়াখালী চ্যানেলটিও গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে সুন্দরবনের সুরক্ষার জন্য।

প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা ব্যায়ে বিআইডাব্লিউটিএ নৌ-পথটি পুনঃখননের মাধ্যমে চলাচল উপযোগী করেছে।

এসআইএইচ/বিআই/২৬ অক্টোবর, ২০১৬

বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1301 Posts)