ইউপি চেয়ারম্যান অপসারণ, পদ শূন্য ঘোষণা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার পুটিখালী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান শাহ চান মিয়া শামীমকে চেয়ারম্যান থেকে অপসারণ করেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রনালয়।

ভালনারেবল গ্রুপ ফিডিং (ভিজিএফ) কর্মসূচি ও মৎস্যজীবীদের চাল বিতরণে অনিয়ম এবং বিভিন্ন সেবা প্রদানে নিবন্ধনের জন্য আদায়কৃত অর্থ আত্মসাতের দায়ে চেয়ারম্যান পদ থেকে তাকে অপসারণ করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর) এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন মোরেলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে পৌছায়।

শাহ চান মিয়া পুটিখালী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি। ২০১৬ সালের ইউপি নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচিত হন তিনি।

২২ নভেম্বর স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের উপসচিব মো. মাহাবুবুর রহমান ওই ইউপি চেয়ারম্যানকে অপসারণের আদেশ দেন।

এতে উল্লেখ করা হয়েছে, যেহেতু, পুটিখালী ইউপি চেয়ারম্যান বিরুদ্ধে ভিজিএফ ও মৎস্যজীবীদের চাল বিতরণে অনিয়ম, ওয়ারেশ কায়েম সনদ, ট্রেড লাইসেন্স ইত্যাদি সেবা হতে টাকা নিয়ে নিবন্ধন হতে আদায়কৃত ফি আত্মসাৎসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে উক্ত পরিষদের ১১ জন সদস্য কর্তৃক অনাস্থা উত্থাপিত হয়।

এর পেক্ষিতে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন-২০০৯ এর ৩৯ ধারা অনুযায়ী উপজেলা নির্বাচন অফিসার কর্তৃক বিশেষ সভা করে গোপন ব্যালটের মাধ্যমে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ও বিপক্ষে ভোট গ্রহন করা হয়। ভোটে অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে ১১টি ভোট পড়ে, যা দুই তৃতীয়াংশের বেশী।

‘যেহেতু, তদন্ত প্রতিবেদনে পুটিখালী ইউপি চেয়ারম্যান শাহ চান মিয়া শামীমের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ প্রমানিত হয়েছে এবং উত্থাপিত অনাস্থা প্রস্তাবের পক্ষে দুই-তৃতীয়াংশের বেশি বিধায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন-২০০৯ এর ৩৯ (১৩) ধারার বিধিান বলে সরকারের স্বার্থে তাঁকে তার স্বীয় পদ থেকে অপসারণের বিষয়টি অনুমদিত হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন-২০০৯ এর ৩৫(২) ধারা অনুযায়ী মোরেলগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পুটিখালী ইউনিয়ন পরিদের চেয়ারম্যানের পদ শূন্য ঘোষনা করে গেজেট বিজ্ঞপ্তি জারির করতে বলেছে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়।

মোরেলগঞ্জের ইউএনও মো. কামরুজ্জামান মিঠু বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, মন্ত্রণালয়ের নির্দেশ অনুযায়ী পুটিখালী ইউপি চেয়ারম্যানের পদটি শুন্য ঘোষনা করে গেজেট বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি কার্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। যার স্মারক নং-০৫.৪৪.০১৬০.০০০.১৬.০১১.২০১৭-১২২৯।

জানতে চাইলে শাহ চান মিয়া শামীম বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে করা অভিযোগ ভিত্তিহীন। আওয়ামী লীগের স্থানীয় কোন্দলের কারণে আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। মন্ত্রনালয়ের ওই আদেশের বিরুদ্ধে আমি উচ্চ আদালতে রিট করেছি। সেখান থেকে গত সোমবার ওই আদেশ স্থগিত করা হয়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি উচ্চ আদালতের ওই আদেশের কপি এখনও হাতে পাইনি। ইউএনও তড়িঘড়ি করে আজ আমার পদটি শূন্য ঘোষাণা করেন। আমি ঢাকাতে আছি। আসার আগে পুটিখালী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড সদস্য ও প্যানেল চেয়ারম্যান মো. ইসমাইল হোসেন মৃধাকে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দিয়ে আসি। তিনি এখন দায়িত্ব পালন করছেন।’

এরআগে চলতি বছরের জুনে বাগেরহাট সদর উপজেলার গোটাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ শমসের আলীর বিরুদ্ধে বয়স্ক, বিধবা, স্বামী পরিত্যক্ত দুস্থ মহিলা এবং প্রতিবন্ধীদের ভাতার টাকা বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল। সংবাদ প্রকাশের পর তদন্তে নেমে প্রশাসন অনিয়মের প্রমাণ পেলে মামলা করে সমাজসেবা বিভাগ।

পরে ১৫ জুন মন্ত্রণালয় ওই চেয়ারম্যানকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করে মন্ত্রনালয়। অবশ্য এর কিছু দিন পর উচ্চ আদালতের মাধ্যমে স্থগিত আদেশ এনে আবার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব নেন তিনি।

এইচ//এসআই/বিআই/২৮ নভেম্বর, ২০১৭

বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1319 Posts)