বাগেরহাটে এলজিইডি’র ঠিকাদারদের মানববন্ধন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

বাগেরহাটে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের (এলজিইডি) আহ্বান করা দরপত্রে নির্মাণ সামগ্রীর দাম বাড়ানোর দাবিতে মানববন্ধন করেছে জেলা ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি।

রোববার (৩ ডিসেম্বর) সকালে বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সামনে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে কয়েকশ ঠিকাদার অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাঘাট, অবকাঠামো নির্মাণ করে সরকারের উন্নয়ন কাজে ঠিকাদাররা অবদান রেখে চলেছেন। এই ঠিকাদারি করে আমাদের জীবিকা নির্বাহ করতে হয়। অথচ সরকারের এই উন্নয়ন কাজে এলজিইডি বিভাগ নির্মাণ সামগ্রীর যে দাম নির্ধারণ করে দরপত্র আহ্বান করছে তার সাথে বর্তমান বাজারদর অসংগতিপূর্ণ।

বর্তমানে বাজারে নির্মান সামগ্রীর দাম অস্বাভাবিকহারে বেড়ে গেছে। এই বাজার দরে যে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কার্যাদেশ পেয়ে তা বাস্তবায়ন করছে তাতে তাকে লোকসানেরমুখে পড়তে হচ্ছে। তাই সরকারের সংশ্লিষ্ট বিভাগের বর্তমানে বেঁধে দেওয়া নির্মান সামগ্রীর দাম বাড়ানোর দাবি জানান তারা।

দাবি না মfনলে ভবিষ্যতে এলজিইডি’র আহ্বান করা দরপত্রে অংশগ্রহণ না নেওয়ার হুমকি দেন সমিতির নেতারা।

তবে বাগেরহাটের স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগ ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির করা সব অভিযোগ সত্য নয় বলে দাবি করেছে। তারা বলছে আমরা যখন উন্নয়ন কাজের দরপত্র আহ্বান করি তখন বাজার দর দেখেই করি।

তারা বলেন, বর্তমানে এলজিইডি বিভাগ যে দরপত্রে উন্নয়ন কাজ আহ্বান করেছে তাতে প্রতিটি ইটের দাম ধরেছে আট টাকা ৭৫ পয়সা অথচ বর্তমান বাজার দর এগারো টাকা, ইটের খোয়া প্রতি ঘনফুট ৮৪ টাকা অথচ বাজার দর একশ টাকা, পাথর চিপস প্রতি ঘনফুট ১২০ টাকা অথচ বাজার দর ১৪৯ টাকা। এছাড়া পাথর ডাস্ট, বিটুমিনসহ সব ধরনের নির্মান সামগ্রীর দামও অস্বাভাবিকহারে বেড়েছে।

তারা আরও অভিযোগ করেন, এলজিইডি বিভাগ স্ব স্ব জেলার দরপত্র আহ্ববানের আগে নির্মান সামগ্রীর বাজার দর যাচাই করে। তারপর তারা দরপত্র আহ্বান করে। উদারহরণ হিসেবে তারা বলেন, পাশ^বর্তি গোপালগঞ্জ ও পিরোজপুর জেলায় নির্মান সামগ্রীর বর্তমান বাজার দরের সঙ্গে সংগতি রেখে এলজিইডি তাদের দরপত্র আহ্বান করে থাকে। শুধুমাত্র বাগেরহাট, খুলনা, সাতক্ষীরা ও নড়াইল জেলায় এলজিইডি তাদের নিয়ম মানছে না। স্থানীয় উর্দ্ধতন কর্মকর্তারাই এটা করছেন।

মানববন্ধনে বক্তব্য দেন ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি’র আহ্বাবায়ক খান আবু বক্কর সিদ্দিক, সদস্য সচিব আব্দুর রব সরদার, সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমানসহ সমিতির সদস্যরা।

মানববন্ধন শেষে জেলা ঠিকাদার কল্যাণ সমিতি বাগেরহাট প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন করে। ওই সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির সদস্য সচিব আব্দুর রব সরদার।

জেলা ঠিকাদার কল্যাণ সমিতির করা সব অভিযোগ সত্য নয় দাবি করে বাগেরহাট এলজিইডি’র জেষ্ঠ্য সহকারি প্রকৌশলী আবু কামাল বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, আমরা যখন উন্নয়ন কাজের দরপত্র আহ্বান করি তখন স্থানীয় বাজারে নির্মান সামগ্রীর বাজার দর যাচাই বাছাই করে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল বিভাগের প্রধান কার্যালয়ে অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়।

তারা যাচাই বাছাই করে চুড়ান্ত অনুমোদন দিলে তার দরপত্র আমরা বিজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ করি। ঠিকাদাররা তো নির্মান সামগ্রীর বাজার দর দেখেই তাতে অংশ নেন।

বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1319 Posts)