মংলায় ভাই ভাইকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করল

আবু হোসাইন সুমন, মংলা:

মংলায় চিংড়ি ঘের বিরোধের জের ধরে আপন ভাই ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করেছে। এ সময় আহত হয়েছে অন্তত ৫ জন। মুমূর্ষ অবস্থায় আহত শাহ আলম শিকারীকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ছবি: আবু হোসাইন সুমন।

ছবি: আবু হোসাইন সুমন।

আহতের পরিবার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মংলার সুন্দরবন ইউনিয়নের বাশতলা এলাকার মৃত মমিন উদ্দিন শিকারীর ছেলে সামাদ শিকারী দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে ওই এলাকায় প্রায় ১০ বিঘার একটি চিংড়ি ঘের করে আসছিল। কিন্তু গত দু’মাস আগে সামাদের আপন ভাই সবুর ঘেরটি জোর করে দখলে নেয়। নিজ ঘের দখলে নেয়ার জন্য সামাদ গত শনিবার ওই ঘেরে গেলে তার ভাই সবুর শিকারী বন্দুক দিয়ে ফাকা গুলি ছুড়ে এবং ঘেরের ঘরটি আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়।

এ নিয়ে ভাইদের মধ্যে বিরোধের সৃষ্টি হয়। বিরোধ মিমাংসায় বৃহস্পতিবার সকালে শহরতলীর কুমারখালী এলাকায় শালিশি বৈঠক চলাকালে সবুর শিকারী, সাহাবুদ্দিন শিকারী ও টিটু শিকারী হঠাৎ করে ধারালো অস্ত্র দিয়ে সামাদ শিকারী ও শাহ আলম শিকারীর উপর হামলা চালায়।

এ সময় সবুর ও সাহাবুদ্দিন শিকারীর ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আপন ভাই শাহ আলম শিকারীর মাথা ফেটে ও থেতলে যায়।

এ সময় শাহজাহান, শাহনাজ, নাজলি বেগমসহ ৫ জন আহত হয়। পরে শাহ আলমকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হলে দুপুরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তবে তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছে হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার।

এ ঘটনা থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানায় আহতের পরিবার। তবে অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন মংলা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ মুনীর উল গীয়াস।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)