মংলা বন্দরে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত জারি; সতর্কতাবস্থায় স্থানীয় প্রশাসন

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘মহাসেন’ উপকূলের দিকে আরো এগিয়ে আসায় মংলা, চট্টগ্রাম সমুন্দ্রবন্দর ও কক্সবাজারে ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত জারি করা হয়েছে।

Mohashanআবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শাহ আলম বলেন, ঘূর্ণিঝড় মহাসেন বাংলাদেশের ওপর দিয়ে বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা বেশি। যদি এটি দুর্বল না হয়ে পড়ে, তাহলে চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে আঘাত হানবে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, যেকোনো সময় এটি দিক পরিবর্তন করতে পারে। ঘূর্ণিঝড় মহাসেন যে গতিতে এগোচ্ছে, তাতে করে যদি এটি আঘাত হানে, তাহলে আগামী বুধবার পর্যন্ত সময় লাগবে।

দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তদসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় মহাসেন শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত মংলা থেকে এক হাজার ২২০ কিলোমিটার দক্ষিণে, চট্টগ্রাম বন্দর থেকে এক হাজার ৩০০ কিলোমিটার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং কক্সবাজার থেকে এক হাজার ২৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছে। ঘূর্ণিঝড়টি এখন ঘনীভূত হয়ে সামান্য উত্তর দিকে সরে গেছে।

এর ফলে মংলা বন্দর সংলগ্ন নদ-নদী ও সাগর উত্তাল রয়েছে।

এটি চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও মিয়ানমারের দিকে এগিয়ে আসছে। আরও কাছে এলে চূড়ান্ত ঘোষণা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

এছাড়া পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত গভীর সাগরে জেলেদের নৌকা ও ট্রলার নিয়ে মাছ ধরতে না যাওয়ার জন্য বলা হয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় আঘাত হানার আশংকায় সতর্কতা অবস্থায় রয়েছে স্থানীয় প্রশাসন, বন্দর কর্তৃপক্ষ, নৌ বাহিনী ও কোস্ট গার্ড। মহাসেন  আতংকে উপকূলীয় লোকজনের মধ্যে চরম আতংক বিরাজ করছে।

জন সাধারণকে সতর্ক করতে বিকেল থেকে মোংলা শহরে মাইকিং করে প্রচারণা চালাচ্ছে পৌর কর্তৃপক্ষ।

১৩.০৫.১৩ :: বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)