দুই বিদ্রোহী প্রার্থীদের অফিস ভাংচুর, আহত ১০

Bohiskhar-from-Aomilig(Bagerhat-4)বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে নির্বাচনের স্বতন্ত্র (বিদ্রোহী) প্রার্থী ড. আব্দুর রহিম খানের ও এসএম মনিরুল হকের প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর করেছে নৌকা সমর্থকরা।

রোববার সন্ধায় উপজেলার পৌরসভার কৃষি ব্যাংক রোড ও কলেজ রোডে পৃথক এই হামলার ঘটনা ঘটে।

এসময় আব্দুর রহিম খানের গাড়ীচালক মো: ইসাহাক (৪৫), তার প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ের নিরাপত্তা প্রহরী আল আমিন (৩০) সহ অন্তত ১০ জন আহতের খবর পাওয়া গেছে।

এ সময় আত্মরক্ষার্থে আব্দুর রহিম খানের ভাই আব্দুল হাই খান তাঁর লাইসেন্সকৃত বন্দুক দিয়ে অন্তত ১০ রাউণ্ড ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

আব্দুর রহিম খানের ভাগ্নে মোস্তাফিজুর রহমান সন্ধ্যায় ঘটনাস্থল থেকে জানান, সন্ধ্যা চাচা (আব্দুর রহিম খান) তার নেতা-কর্মীদের নিয়ে কলেজ রোড় ছোট ভাই আব্দুল হাই খানের বাড়ির নীচতলায় তার প্রধান নির্বাচনী কার্যালয়ে বসে ভোটের ফলাফল দেখছিলেন। এসময় আকস্মিকভাবে ডা. মোজাম্মেল হোসেনের এক দল উৎশৃঙ্খল কর্মী শ্লোগান দিয়ে মিছিল নিয়ে তাদের কার্যালয়ে ঢুকে হামলা চালায়।

পুলিশের সাবেক অতিরিক্ত আইজিপি ও সদ্য বহিস্কৃত জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আব্দুর রহিম খাঁন (আনারস) বাগেরহাট ইনফোকে জানান, নৌকা প্রতিকের সমর্থকরা তার নির্বাচনী অফিস এবং নেতা-কর্মীদের উপর হামলা চালিয়ে ব্যক্তিগত নোয়া মাইক্রোবাস, নির্বাচনী কার্যালয়ের টেবিল-চেয়ার, টেলিভিশন ও আসবাব ভাংচুর করে।

তিনি আরও বলেন, এঘটনার ১০ মিনিট পর তারা আবারও সেখানে হামলা চালায়। এ সময় আত্মরক্ষার্থে আমর ছোট ভাই আব্দুল হাই খান তাঁর বৈধ বন্দুক দিয়ে অন্তত পনের রাউণ্ড ফাঁকা গুলি ছোড়েন।

এঘটনায় তার ১০-১২ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছে। তবে তাৎক্ষনিক ভাবে তাদের নাম জানাতে পারেনি তিনি।

অপর বিদ্রোহী (সতন্ত্র) প্রার্থী মোরেলগঞ্জ পৌর মেয়র ও সদ্য বহিস্কৃত পৌর আওয়ামীলীগের আহবায়ক এসএম মনিরুল হক তালুকদার (টেবিল ঘড়ি) বাগেরহাট ইনফোকে বলেন, সন্ধ্যা পৌঁনে ৬টার দিকে আওয়ামী লীগের প্রার্থী ডা. মোজাম্মেল হকের সমর্থকরা কৃষি ব্যাংক রোডে আমার নির্বাচনী কার্যালয়ে হামলা চালিয়ে ভাংচুর করে। তবে এ সময় ঐ কার্যালয়ে কেউ না থাকায় হতাহতের কোন ঘটনা ঘটেনি।

এদিকে সন্ধ্যা  পৌনে ৮টায় বাগেরহাট শহরের খানজাহান আলী কলেজের সামনের খুলনা-বাগেরহাট মহাসড়কে একটি ইজিবাইক ভাংচুর এবং চালককে মারধর করেছে দূর্বৃত্তরা।

মোরেলগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক এবং বাগেরহাটের পুলিশ সুপার মো: নিজামুল হক মোল্লা ভাংচুরের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

০৫ জানুয়ারি ২০১৪ :: হেড অফ নিউজ,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এএস/এসআই হক-নিউজরুম/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)