সুন্দরবনে র‌্যাব-বনদুস্য বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ৩; অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের মৃগামারী এলাকায় বনদুস্য মর্তুজা বাহিনীর সঙ্গে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-৮ (র‌্যাব) এর সদস্যদের বন্দুকযুদ্ধে তিন বনদস্যু নিহত হয়েছেন।

BagerhatNews23.04.13মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে পূর্ব সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের মৃগমারী খালে ওই বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। র‌্যাব জানিয়েছে, নিহতরা সবাই সুন্দরবনের ‘মোর্তুজা বাহিনী’ নামে পরিচিত বনদস্যু দলের সদস্য।

নিহতদের মধ্যে একজনের পরিচয় জানা গেছে। তার নাম সেলিম (৩৭), বাড়ি বাগেরহাটের মংলা উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের বুড়বুড়িয়া গ্রামে।

এসময় ঘটনাস্থল উদ্ধার করা হয়েছে থেকে ৭টি আগ্নোয়াস্ত্র ও ২০ রাউন্ড গুলি।

র‌্যাব-৮ এর অধিনায়ক লেফটেনেন্ট কর্নেল ফরিদুল আলম জানান, সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জ এলাকায় মোর্তুজা বাহিনীর সদস্যদের অবস্থানের খবর পেয়ে মঙ্গলবার ভোরে র‌্যাবের দুটি দল সেখানে অভিযান চালায়।

“সকাল ৭টার দিকে তারা মৃগমারী খালের তিন কিলোমিটার ভেতরে বনের মধ্যে দস্যুদের একটি আস্তানা ঘিরে ফেললে বনদস্যুরা র‌্যাবের ওপর গুলি শুরু করে। র‌্যাব সদস্যরাও পাল্টা গুলি চালালে দুই পক্ষের মধ্যে প্রায় আধা ঘণ্টা বন্দুকযুদ্ধ চলে। এক পর্যায়ে ‘দস্যুরা’ পিছু হটে বনের ভেতরে পালিয়ে যায়।
Mongla-Bagerhatপরে র‌্যাব সদস্যরা ঘটনাস্থলে তল্লাশি চালিয়ে তিন জনের লাশ ও অস্ত্র উদ্ধার করে।”

তিনি বলেন, স্থানীয় জেলেরাই নিহতদের লাশ দেখে সেলিমকে সনাক্ত করে।

বাগেরহাটের পুলিশ সুপার খন্দকার রফিকুল ইসলাম জানান, উপ-পরিদর্শক মঞ্জুর ই এলাহীর নেতৃত্বে মংলা থানা পুলিশের একটি দল সুন্দরবনের জয়মনি এলাকার উদ্দেশ্যে রওনা হয়েছেন। সেখানে পুলিশের কাছে নিহতদের লাশ ও আগ্নেয়াস্ত্র হস্তান্তর করার কথা রয়েছে র‌্যাবের।

র‌্যাব তাদের মৃতদেহ মংলা থানায় হস্তান্তরের পর প্রাথমিক সুরতহাল শেষে বাগেরহাট মর্গে পাঠায় পুলিশ। এ ঘটনায় র‌্যাব-৮ এর ডি এ ডি মোজাফফর বাদী সরকারী কাজে বাধা প্রদান এবং অস্ত্র আইনে পৃথক মংলা থানায় দুটি মামলা দায়ের করেছেন।

২৩-০৪-২০১৩ :: নিউজ করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)