নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধের দাবীতে বাগেরহাটে মানববন্ধন

নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধের দাবীতে বাগেরহাটে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ মানববন্ধন। ছবি- টিআইবি।

নারী ও শিশুর প্রতি সহিংসতা বন্ধের দাবীতে বাগেরহাটে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের মানববন্ধন। ছবি- টিআইবি।

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)’র পৃষ্ঠপোষকতায় গঠিত সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), বাগেরহাট’র উদ্যোগে সাম্প্রতিককালে সারাদেশে আদিবাসীসহ অগণিত নারী ও শিশু ধর্ষণ এবং সকল প্রকার নির্যাতন ও সহিংসতার প্রতিবাদে এবং নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতা বন্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ, অপরাধীদের কঠোর শাস্তি, ধর্ষণ ও নির্যাতনের শিকার নারীদের সুচিকিৎসা ও ক্ষতিপূরণের দাবীতে ১৩ জানুয়ারি, ২০১৩ রবিবার সকাল ১১:০০ মিনিট বাগেরহাট প্রেস ক্লাবের সামনে এক ‘মানববন্ধন’ এর আয়োজন করা হয়। মানববন্ধনে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), বাগেরহাট’র শিক্ষা বিষয়ক উপ-কমিটর সভাপতি প্রফেসর এবিএম. মোশাররফ হুসাইন।

মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তারা সরকার, প্রশাসন, আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক ব্যক্তি, গনমাধ্যম কর্মী ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিদের প্রতি যে সকল দাবী উত্থাপন করেন তা হলো- (১) কোনরূপ ভয়-ভীতি ও করুণার ঊর্ধ্বে থেকে নারী ও শিশু নির্যাতন আইন- ২০০০ এর কার্যকর প্রয়োগ চাই; (২) প্রশাসন, আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা ও বিচার ব্যবস্থায় নিরপেক্ষতা, পেশাদারি উৎকষর্তা ও দৃঢ়তা প্রতিষ্ঠার জন্য একদিকে সচেতনতামূলক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম ও অন্যদিকে এসব প্রতিষ্ঠানসমূহ যাতে সম্পূর্ণভাবে নিরপেক্ষতার সাথে রাজনৈতিকসহ যে কোন প্রকার প্রভাবমুক্ত হয়ে দায়িত্ব পালন করতে পারে সেই পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। এক্ষেত্রে অন্তরায়ের জন্য যারা দায়ী তাদেরকেও বিচারের আওতায় আনতে হবে; (৩) ধর্ষকসহ সকল প্রকার যৌননির্যাতনকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান নিশ্চিত করতে হবে; (৪) ধর্ষণে ক্ষতিগ্রস্ত নারীর প্রতি ন্যায়বিচার ও ক্ষতিপূরণসহ আর্থিক সহযোগিতা ও মানসিক চিকিৎসা সরকারিভাবে নিশ্চিত করতে হবে এবং এই লক্ষ্যে ‘ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টার’ ও এই ধরণের ঘটনা জানানোর জন্য ‘হটলাইন’ চালু করতে হবে; (৫) ধর্ষণের শিকার নারীর প্রতি সহমর্মিতায় গণজাগরণে ঐক্যমতের মাধ্যমে রাষ্ট্রীয় ও রাজনৈতিক সদিচ্ছার সাথে গণমাধ্যম, সুশীল সমাজ, এনজিও ও দেশের প্রতিটি সচেতন মানুষের সম্মিলিত পদক্ষেপ নিতে হবে; (৬) মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেটের মাধ্যমে দ্রুত ছড়িয়ে পড়া পর্নোপণ্যের বাজার বন্ধে যুগোপযোগী সাইবার আইন প্রণয়ন ও তার কার্যকর প্রয়োগ নিশ্চিত করতে হবে।

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য রাখেন সনাক সভাপতি প্রফেসর চৌধুরী আব্দুর রব, সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন), বাগেরহাটের সভাপতি প্রফেসর মোজাফ্ফর হোসেন, খোন্দকার গিয়াস উদ্দিন, সনাক সদস্য এ্যাড: রামকৃষ্ণ বসু, প্রেস ক্লাবের সাবেক সেক্রেটারী জনাব বাবুল সরদার, স্বচ্ছতার জন্য নাগরিক (স্বজন) সদস্য প্রফেসর খান সালেহ্ আহমেদ, জনাব এফ. এম. মোস্তাফিজুল হক, মহিলা পরিষদের সদস্য জনাব কাজী রেহানা পারভীন রিনু, স্বজন সদস্য জনাব মুখার্জী রবীন্দ্রনাথ, সনাক সদস্য জনাব শিল্পী সমাদ্দার, জনাব শেখ শামীম হাসান, সাংবাদিক জনাব ইয়ামিন আলী, অগ্রযাত্রা মহিলা সমিতির সভাপতি আম্বিয়া খাতুন, উন্মেষ’র নির্বাহী পরিচালক জনাব মঞ্জুরুল ইসলাম প্রমুখ। মানববন্ধনে বাগেরহাটের বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করেন এবং কর্মসূচি সাথে এবং দাবীর প্রতি একাত্মতা ও সহমর্মিতা প্রকাশ করেন।

AnisWriter: Anis (5 Posts)

Area Manager, Transparency International Bangladesh (TIB) 43, PC College Road, Bagerhat.


Comments

  1. Sadhin Rahman says:

    Sofhol hok Manob bondhon