বিশেষ সতর্কতা; বগেরহাটের সব থানায় পুলিশের বাংকার তৈরি

বাগেরহাটে ৯টি থানাসহ জেলার বিভিন্ন পুলিশ ফাঁড়ি গুলোর নিরাপত্তা জোরদারে বালির বস্তা দিয়ে বাংকার তৈরি করেছে পুলিশ। এছাড়া জোরদার করা হয়েছে মংলা বন্দর, ঐতিহাসিক পর্যটন কেন্দ্রসহ জেলার গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা সমূহে নিরাপত্তা।
Bagerhat-District-Mapবিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, দেশের চলমান পরিস্থিতে রাজনৈতিক সহিংসতায় থানা ও পুলিশ ফাঁড়ি, সব থানা, ফাঁড়ি ও পুলিশ স্টেশনে আক্রান্ত হবার আশংকা থাকায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। পুলিশি টহলের পাশাপাশি নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে দেশের দ্বিতীয় সমুদ্র বন্দর মোংলা, মংলা শিল্পাঞ্চল, ঐতিহাসিক ষাটগুম্বুজ মসজিদ, হযরত খানজাহান আলী (রঃ) মাজারসহ দড়াটানা ও মুনিগঞ্জ সেতুর।
জানা গেছে, বুধবার সকালের পর থেকেই জেলার প্রতিটি থানায় বালির বস্তা ফেলে বাংকার তৈরির কাজ শুরু হয়। পুলিশ যাতে নিজের আত্নরক্ষা করে শত্রু মোকাবেলায় এলএমজি (লাইট ম্যাশিনগান) ব্যবহার করতে পারে এজন্য থানা, ফাঁড়ি ও ক্যাম্পে বালুর বস্তা দিয়ে এলএমজি পোস্ট (বাংকার) তৈরি করা হয়েছে।
নাম প্রকাশে না করার শর্তে পুলিশের একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, পুলিশের স্থাপনায় নাশকতা ঘটতে পারে এমন গোয়েন্দা রিপোর্টের ভিত্তিতে এ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।
তবে গোয়েন্দা রিপোর্টের ব্যাপাটি এড়িয়ে গিয়ে বাগেরহাট সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এরশাদুল কবির বাগেরহাট ইনফোকে জানান, নিরাপত্তা কৌশলের অংশ হিসাবে এ ব্যাবস্থা নেওয়া হয়েছে। তবে তিনি একে বাংকার না বলে নিরাপত্তা চৌকি বলে দাবি করেন।
থানায় বালির বস্তা দিয়ে বিশেষ নিরাপত্তাবলায় তৈরি কথা স্বিকার করেছেন রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী দাউদ হোসেন।
এদিকে, এমন খবরে আতংক ও উৎকন্ঠা বেড়েছে জেলার সাধারন মানুষের মাঝে।
থানা গুলতে বালির বস্তা দিয়ে নিরাপত্তা চৌকি বা বাংকার তৈরির ব্যাপারটি নিশ্চিত করে বাগেরহাটের পুলিশ সুপার (এসপি) মোঃ নিজামুল হক মোল্যা বাগেরহাট ইনফোকে জানান, ২৫ অক্টোবরকে সামনে রেখে নাশকতার আশংকায় জেলার প্রতিটি থানা ও ফাঁড়ি পুলিশকে সতর্ক অবস্থায় রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
এছাড়া পুলিশি টহল বৃদ্ধির পাশাপাশি জেলার বিভিন্ন স্থানে চেক পোষ্ট বসান হচ্ছে বলে জানান তিনি।
২৩ অক্টোবর ২০১৩ :: নিউজ এডিটর,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এসআইএইচ-নিউজ ডেস্ক/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)