কচুয়ায় দুটি পারিবারিক মন্দিরে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ

বাগেরহাটের কচুয়ায় দুটি পারিবারিক মন্দিরে অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা।
বুধবার গভীর রাতে উপজেলার ধোপাখালী ইউনিয়নের ধোপাখালী গ্রামের এঘটনা ঘটে।

দুর্বৃত্তরা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের ধোপাখালী গ্রামের ননী গোপাল সরকার এবং তাঁর প্রতিবেশি ডা. তপন কুমার কবিরাজের পারিবারিক মন্দির অগ্নিসংযোগ ও প্রতিমা ভাংচুর করে।

ননী গোপাল সরকার বলেন, রাত একটার দিকে বাইরে শব্দ পেয়ে ঘুম ভেঙ্গে যায়। তখন বাড়ির সবাই উঠে দেখি মন্দিরে আগুন জ্বলছে। আমাদের ডাকচিৎকারে প্রতিবেশিরা ছুটে এসে আগুন নেভায়।

ধোপাখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এমডি মোস্তাজাবুল জানান, ধোপাখালী গ্রামের ননী গোপাল সরকার তাঁর বাড়িতে হরিচাঁদ ঠাকুরের নামে মন্দির প্রতিষ্ঠা করে গত ১৫ বছর ধরে পূজা করে আসছেন। বুধবার গভীর রাতে অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা মন্দিরে আগুন দিয়েছে।

আগুনে মন্দিরের হরিচাঁদ ঠাকুরসহ বেশ কয়েকটি প্রতিমার শরীর ঝলসে গেছে। এসময়ে দুর্বৃত্তরা পাশের তপন কুমার কবিরাজের বাড়ির মনষা মন্দিরের ঢুকে স্বরস্বতী দেবীর প্রতিমা উপুড় করে ফেলে দিয়েছে। এতে ওই প্রতিমাটি ভেঙ্গে গেছে।

আগুনে মন্দিরের হরিচাঁদ ঠাকুরের প্রতিমাসহ বেশ কয়েকটি প্রতিমা পুড়ে গেছে। আর মনসা মন্দিরে সরস্বতী প্রতিমা ভাংচুর করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এবিষয়ে কচুয়া থানার সেকেন্ড অফিসার (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম বলেন, অজ্ঞাতনামা দুর্বৃত্তরা কেরসিন ঢেলে ননী গোপাল সরকারের মন্দিরে আগুন দিয়েছে। একই সময়ে ওই দুর্বৃত্তরা প্রতিবেশি তপন কুমার কবিরাজের মনসা মন্দিরের সরস্বতী প্রতিমা ভাংচুর করে।

হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি।

২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ :: নিউজ ডেস্ক, 
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এসআই হকনিউজরুম এডিটর/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)