শরণখোলায় বাড়ি ও মন্দিরে ভাঙচুরের অভিযোগ

Bagerhat-Pic-1(15-08-2015)বাগেরহাটের শরণখোলায় হিন্দু সম্প্রদায়ের একটি বাড়ি ও মন্দিরে হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শুক্রবার দিবাগত গভীর রাতে শরণখোলা উপজেলার ধানসাগর ইউনিয়নের রাজাপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, দখলের উদ্দেশ্যে স্থানীয় আবদুর রাজ্জাক শরীফের নেতৃত্বে ২৫-২৬ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী এই হামলা চালায়। এসময় তারা ঐ বাড়িতে ঢুকে ব্যাপক ভাংচুর করে।

খবর পেয়ে পুলিশ ওই রাতেই ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারী শরীফের মা, এক ভাই ও ওই ভাইয়ের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ, মন্দিরের সেবায়েত ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (১৪ আগস্ট) রাত ১২টার দিকে আবদুর রাজ্জাক শরীফ ২০-২৫ জন লোক নিয়ে রাজাপুর বাজারের শ্রীশ্রী গোবিন্দ মন্দিরের সেবায়েত দ্বিজেন্দ্রনাথ হালদারের বসতঘরে হামলা চালান। এ সময় দ্বিজেন্দ্রনাথ প্রাণভয়ে ঘরের পেছন দিক দিয়ে পালিয়ে যান।

সন্ত্রাসীরা তাঁর ঘরের আসবাব, প্রার্থনা মন্দির, দেব-দেবীর ছবি ভাঙচুর করে এবং স্বর্ণালংকার ও মন্দিরের দানবাক্স থেকে অর্থ লুট করে।

স্থানীয়রা জানান, ওই জমি নিয়ে দ্বিজেন্দ্রনাথের সঙ্গে আবদুর রাজ্জাক শরীফের আদালতে মামলা চলছে। আবদুর রাজ্জাক শরীফ রাজাপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান শরীফের ছেলে।

হামলা, ভাংচুর, লুঠ ও দখলের অভিযোগ অস্বীকার করে আবদুর রাজ্জাক শরীফ বলেন, দ্ববীজেন্দ্রনাথ হালদারের বাবা ও কাকার কাছ থেকে তিনি দুই একর সাড়ে ১৩ শতাংশ জমি ক্রয় করে সেখানে বাগান বাড়ি করেছেন। ঘটনার সময়  তার মা, ভাইসহ পরিবারের সদস্যরা তার বাগান বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

দ্বীজেন্দ্রনাথ হালদার পরিকল্পিতভাবে তাকে এবং তার পরিবারকে নাজেহাল করতে এই হামলা ও দখলের অভিযোগ সাজিয়েছেন।

তবে এ দাবি অস্বীকার করে দ্বিজেন্দ্রনাথ হালদার বলেন, রাজ্জাক শরীফ জাল দলিল করে তাঁদের জমি দখলের চেষ্টা করছেন। এ নিয়ে বাগেরহাটে আদালতে মামলা রয়েছে।

রাজ্জাক শরীফের দখলে কোনো বাগানবাড়ি নেই। হামলার ঘটনায় তিনি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

স্থানীয় ৭ নং ইউপি সদস্য আমিনুল ইসলাম পিঞ্জু জানান, রাজ্জাক শরীফের সাথে দ্বীজেন্দ্রনাথের জমি সংক্রান্ত একাধিক মামলা আদালতে বিচারাধীন। শুক্রবার গভীর রাতে গোবিন্দ মন্দিরের সেবাইত দ্বীজেন্দ্রনাথ হালদারের বসত বাড়ি দখলের খবর পেয়ে তিনি সাথে সাথে শরণখোলা থানাকে বিষয়টি হজানান।

খবর পেয়ে পুলিশ এসে সেখান থেকে তিন জনকে গ্রেপ্তার করে। তবে পুলিশ আসার আগেই সন্ত্রাসীরা পালাতে সক্ষম হয়।

শরণখোলা থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) রেজাউল করিম জানান, শুক্রবার রাত একটার দিকে রাজাপুর গ্রামে বাড়ি দখলের খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায় এবং সেখান থেকে সোলায়মান শরীফ, তার মা নূও জাহান ও স্ত্রী সুমি আক্তারকে গ্রেপ্তার করে। ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে শনিবার (১৫ আগস্ট) দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেপ্তারকৃতদের সাথে দ্বীজেন্দ্রনাথ হালদারের জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধ রয়েছে। তাদের (গ্রেপ্তার) কাছ থেকে জমির কয়েকটি দলিল উদ্ধার করা হয়েছে।

১৫ আগস্ট :: সিনিয়র স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এস/আইএইচ/এনআরএ/বিআই
বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1301 Posts)