ফিরে আসি ফিরে যাই

fira asi

সময়ের ধাবমান গতিতে যাওয়া আসা
মমতাময়ী পৃথিবীর জন্য অফুরাণ ভালোবাসা
তাই ফিরে আসি ফিরে যাই।
রাত্রির রূপালী  নদীর কাছে ফিরে যাই
নদীর জলে নিমজ্জন শেষে প্রফুল্ল হয়ে আবার ফিরে আসি।
নিপুন চাঁদের লাবণ্যে ফিরে যাই
নতুন করে উজ্জীবিত হয়ে ফিরে আসি আপন নিলয়ে।
কুয়াশার মধ্যে ফিরে যাই
দিগন্ত প্লাবিত আলোর ঝলকানিতে আবার ফিরে আসি।
পাখি, ফুলের কাছে ফিরে যাই
কণ্ঠে সুধা প্রেমগান নিয়ে ফিরে আসি
যাপিত জীবনের স্মৃতির যাদুঘরে ফিরে যাই
স্মৃতির যাবর কেটে আবার ফিরে আসি
গহীন অন্ধকারে ফিরে যাই
আবার ফিরে আসি আলোক পানে।
বিপন্ন মানুষের মাঝে ফিরে যাই
তাদের দুঃখের ঝাঁপি নিয়ে আবার ফিরে আসি
ধানের গন্ধের কাছে ফিরে যাই
পাখির  কলকাকলী মুখরিত সন্ধ্যায় আবার ফিরে আসি
জন্ম মাস চৈত্রে মায়ের নাভী মূলে চলে যাই
কিছুক্ষণ থেকে আবার
বৈশাখের রংয়ের খণিতে ফিরে আসি।
কবিতাকে নির্বাসন দিয়ে চলে যাই
আবার কবিতার কাছে চলে আসি
কবিতা ছাড়া এক দণ্ড চলে না মনের পাখা মেলে না
বঙ্কিম রেখায় এটে দেওয়া নারী দেহের কাছে ফিরে যাই
আবার জীবনের পূর্ণতায় ফিরে আসি
আমার গর্বিত একুশ
রক্তে ভেজা একাত্তরের কাছে ফিরে যাই
আবার শক্তি সাহস নিয়ে ফিরে আসি।
বারবার ফিরে যাই আর ফিরে আসি
এ পৃথিবীকে ভালোবেসে।

ছবি: ওয়েব থেকে সংগ্রহিত.

Poet BadruddozaWriter: Poet Badruddoza (3 Posts)

বর্ণিল নার্সারী, আমড়া, সুপারি, পেয়ারা, সারিসারি কাঠ ও জালের মত ছড়িয়ে থাকা নদী খালের পিরোজপুর জেলার স্বরূপকাঠি বর্তমান নেছারাবাদ উপজেলার আউরিয়া গ্রামে ১৯৬৬ সালের ১০ এপ্রিল কবি ও প্রাবন্ধিক মুহম্মদ বদরুদ্দোজা জন্মগ্রহণ করেন। ভাষা সৈনিক, শিক্ষাবিদ মোঃ হাবিবুল্লাহ তাঁর পিতা, শিক্ষিকা যোবেদা খাতুন তার মাতা। তিনি তার পিতামাতার গর্বিত জমজ সন্তান। তার অপর ভাই মোরশেদ তোহা বাংলাদেশ পুলিশ বিভাগে অফিসার পদে কর্মরত। ছেলেবেলা থেকেই সাহিত্য-সংস্কৃতি ও অসাম্প্রদায়িক আবহে বেড়ে ওঠেন তিনি বি.এস.এস.(সম্মান) এম.এস.এস; এল.এল.বি, সার্টিফিকেট কোর্স ইন ইংলিশ, এম.এ (ইংরেজি) ১ম পর্ব উত্তীর্ন কর্মজীবন শুরু করেন ঢাকা বারে আইনজীবি হিসেবে। অতঃপরজেলার হিসেবে বিভিন্ন জেলা কারাগারে দায়িত্বপালন করে বর্তমানে বাগেরহাট জেলা কারাগারে কর্মরত আছেন। পেশাগত ব্যস্ততার মাঝেও সাহিত্য চর্চা অব্যাহত রেখেছেন। বাংলাদেশ ও ভারতের নির্বাচিত লেখকদের নিয়ে প্রকাশিত ২৫টি যৌথ গ্রন্থে ও প্রচুর পত্রিকায় তাঁর লেখা স্থান পেয়েছে। এ যাবৎ তাঁর ৩টি কাব্য ও ২টি প্রবন্ধ গ্রন্থ প্রকাশ হয়েছে। যথাক্রমে-১) নোঙর ফেলে যাই(কাব্য), ২) হৃদয় ছুঁয়ে যাই, (প্রবন্ধ) ৩) জীবন সেতো শুদ্ধ কবিতা (কাব্য), ৪) আলোকিত জীবন (প্রবন্ধ), ৫) ফিরে আসি ফিরে যাই (কাব্য)। দেশের বরেণ্য কবিদের কবিতা নিয়ে বৈশাখের নির্বাচিত কবিতা সংকলন ‘আমের মঞ্জরী’ প্রকাশ করে তিনি বৈশাখী কবিতা প্রেমীদের হৃদয় কেড়েছেন। বাংলা একাডেমী, ঢাকার সম্মানিত সদস্য, এশিয়াটিক সোসাইটি অব বাংলাদেশ এর সহযোগী সদস্য। বাংলাদেশ কবিতা সংসদ, প্রধান কার্যালয়, পাবনা ও উত্তর বাঙলা সংস্কৃতি পরিষদ, কেন্দ্রীয় কার্যালয়, পাবনা সহ নানা সংগঠনের সম্মানিত আজীবন সদস্য। প্রতিভার স্বীকৃতি স্বরূপ নির্ণয় শিল্পী গোষ্ঠী, ফরিদপুর থেকে ১টি স্বর্ণপদক, আসাম ভারত থেকে ‘বিপিন চক্রবর্তী স্মৃতি সম্মাননা’১০, সার্ক কালচারাল ফোরাম, ভারত থেকে সম্মাননা-১২ সহ বাংলাদেশ, ভারত থেকে ২০টি সাহিত্য পদক ও সম্মাননা পেয়েছেন। আবৃত্তি ও উপস্থাপনায় তাঁর দক্ষতা রয়েছে। তিনি নির্মোহ ও আত্মপ্রচার বিমুখ প্রতিভা। সৃষ্টিতেই আনন্দ খোঁজেন। অদম্য প্রাণশক্তি, প্রবল উচ্চাশা ও কঠোর অধ্যবসায় তাঁর চালিকাশক্তি। মুক্তবুদ্ধি ও মুক্তচিন্তা চর্চায় শ্রদ্ধাশীল। মহান মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলন বিষয়ক গবেষণা কর্মে তাঁর বিপুল আগ্রহ।