দু:খজনক…

বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে স্থানীয় এক সংবাদকর্মীকে লাঞ্ছত করার পর এবার তার বিরুদ্ধে ওই হামলাকারীরা ষড়যন্ত্র শুরু করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার (১ নভেম্বর) মোরেলগঞ্জ উপজেলা অফিসার্স ক্লাবে আয়োজিত সমবায় দিবসের অনুষ্ঠান চলাকালে পেশাগত দায়িত্ব পালনরত অবস্থায় সংবাদকর্মী মশিউর রহমান মাসুম স্থানীয় আ.লীগের ছত্রছায়ায় থাকা তালিকাভুক্ত আলবদর নেতা ও তার ভাই এর হামলার শিকার হন

এদিকে এঘটনাকে কেন্দ্র করে সোমবার (৩ নভেম্বর) সন্ধ্যায় মোরেলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে সংবাদকর্মী মশিউর রহমান মাসুমের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে।

Morrelgong-Pic-01(05-11-14)এতে অভিযোগ করা হয় ওই সাংবাদিক বাগেরহাট-৪ আসনের (স্থানীয়) সংসদ সদস্য ডাঃ মোজাম্মেল হোসেনের সামনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান লালের সাথে অসৌজন্যমূলক আচনের করেছেন।

সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে শফিকুর রহমান লাল বলেন, ১লা নভেম্বর উপজেলা অফিসার্স ক্লাব মিলনায়তনে জাতীয় সমবায় ও যুবদিবস চলাকালীন সাংবাদিক মাসুম কিছু কাগজপত্র নিয়ে সংসদ সদস্যের সাথে কথা বলার চেষ্টা করে। অনুষ্ঠানের বিঘ্ন হবে ভেবে পাশে উপবিষ্ট আ.লীগ সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান লাল তাকে অনুষ্ঠানের পরে কথা বলার জন্য বলেন। এতে সে ক্ষিপ্ত হয়ে তার সাথে অসৌজন্যমূলক আচরণ করে।

পরে ঐদিন রাতে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার লিয়াকত আলী খান, আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক, আ.লীগ সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ শাহাবুদ্দিন তালুকদার, ইউপি চেয়ারম্যান মাহামুদ আলী সহ উপস্থিত নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে বিষয়টি নিস্পত্তি হয়।

তারপরও সে অনলাইন ও বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় উদ্দেশ্য প্রনোদিত হয়ে ঘটনাটি ভিন্নরুপে প্রকাশ করান। যা অত্যন্ত দুঃখজনক। সংবাদিক সম্মেলনে বিষয়টি অপসাংবাদিকতার উল্লেখ করে এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানানো হয়।

সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মোরেলগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লিয়াকত আলী খান, সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক, সহ-সভাপতি ইব্রাহিম হোসেন হাওলাদার, সাংগঠনিক সম্পাদক জলিল ভিপি, যুগ্ম সম্পাদক নাসির উদ্দিন মৃধা, স্বেচ্ছাসেবকলীগ সভাপতি আব্দুল হালিম জোমাদ্দার, যুবলীগ সভাপতি মুসফেকুর রহমান নাহার সহ আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

তবে ঘটনার দিনে (১ নভেম্বর) সেখানে উপস্থিত স্থানীয় একাধিক সংবাদকর্মী বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে জানায়, ওই দিন অনুষ্ঠান শুরুর আগে সংসদ সদস্যের সঙ্গে প্রেস ক্লাবের সংস্কার কাজের উদ্বোধনের বিষয়ে কথা বলতে গেলে হঠাৎ করেই প্রেস ক্লাব ও সাংবাদিকদের সম্পর্কে আপত্তিকর মন্তব্য করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শফিকুর রহমান লাল।

ওই মন্তব্যের প্রতিবাদ করায় এবং পূর্বশক্রতার জেরে শফিকুর রহমান লাল ও তার ছোট ভাই যুবলীগ সভাপতি মুশফেকুর রহমান নাহার সাংবাদিক মাসুমকে সবার সামনে মারধর করে।

পরে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে এক পর্যায়ে রক্ষাপান ওই সাংবাদিক। ঘটনার সময় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আব্দুল হালিম জমাদ্দারও তেড়ে আসেন বলে নাম প্রকাশ না করার শর্ত স্থানীয় একটি সূত্র জানায়।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে সংবাদকর্মী মশিউর রহমান মাসুমকে আর কোন রুপ হয়রানি না করারা আহ্বান জানিয়েছেন জেলার বিভিন্ন স্থরের সংবাদকর্মীরা।

প্রসঙ্গত, আ.লীগ নেতা শফিকুর রহমান লাল ও আব্দুল হালিম জমাদ্দার তালিকভুক্ত রাজাকার ও আলবদর। এ বিষয়ে বিভিন্ন পত্রিকায় প্রমাণসহ সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় আওয়ামী লীগের পোস্ট পজিশনে থাকা ওইসব আলবদর ও রাজাকার নেতারা ক্ষিপ্ত হন।

০৫ নভেম্বর ২০১৪ :: স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এএইচএস/এস/আই হক-এনআরএ/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)