নৌ শ্রমিকদের কর্মবিরতিতে বন্দরে পণ্য পরিবহন বন্ধ

Mongla-Port-Shippingবেতন-ভাতা বৃদ্ধি, নৌ পথে চাঁদাবাজি বন্ধসহ ১৫ দফা দাবিতে সারাদেশে নৌ-যান শ্রমিকদের অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলছে। ফলে মংলা বন্দরসহ সারাদেশে নৌ যোগাযোগ ও পণ্য পরিবহন বন্ধ রয়েছে।

বুধবার দিনগত মধ্যরাত থেকে বাংলাদেশ নৌ-যান পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশনের ডাকে সারাদেশে অনির্দিষ্টকালের এ কর্মবিরতি শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আশিকুল আলম বলেন, ধর্মঘটের আওতায় সারাদেশে যাত্রীবাহী ও পণ্যবাহী সব ধরনের নৌ-যান চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে। দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তাদের এ কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে।

বাংলাদেশ নৌ-যান শ্রমিক ফেডারেশন মংলা শাখার কার্যকরি সভাপতি আনোয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, কর্মবিরতির আওতায় কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তে মংলা বন্দরের নৌ শ্রমিকরা সব ধরনের কাজ বন্ধ রেখেছে। লাইটারেজ, কার্গো, বার্জ, অয়েল ট্যাঙ্কার, কোস্টার থেকে শুরু করে সব ধরনের জাহাজী ও যাত্রীবাহী নৌ-যানের শ্রমিকরা একযোগে এ কর্মবিরতি পালন করছে। ফলে বন্দরে জাহাজ থেকে পণ্য ওঠানামা এবং দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে নদী পথে চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ রয়েছে।

মংলাবন্দর সূত্রে জানান গেছে, কর্মবিরতির ফলে মাদার ভ্যাসেল থেকে পণ্য বন্দরের জেটিতে আনা নেওয়া এবং বন্দর থেকে নদী পথে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে পরিবহন বন্ধ রয়েছে। বিশেষ করে মংলা বন্দর থেকে সারাদেশে প্রধানত নদী পথে পণ্য পরিবহনের কারণে কর্মবিরতিতে বন্ধরের কার্যক্রম কিছুটা স্থবিরত তৈরি হয়েছে।

বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সম্পাদক আবুল কাশেম মাস্টার জানান, কর্মবিরতির আওতায় মংলা ও চট্টগ্রাম বন্দরসহ দেশের সব নদী বন্দর এবং নৌ-পথে পণ্য ও যাত্রী পরিবহন বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। তবে মধ্যরাতের আগে নদী ও সমুদ্র বন্দর থেকে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যের যাত্রা শুরু করা নৌ-যান গুলোকে দুপুর ১২টার মধ্যে গন্তব্যে পৌঁছানার জন্য চলাচলের অনুমতি রয়েছে।

নৌযান শ্রমিকদের বেতন সরকারি পে-স্কেলের সঙ্গে সমন্বয় এবং নদী পথে অব্যাহত চাঁদাবাজি বন্ধসহ দাবি বাস্তবায়ন না হওয়া পর্যন্ত কর্মবিরতি অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।

২১ এপ্রিল :: স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এস/আইএইচ/এনআরএ/বিআই
বাগেরহাট ইনফো নিউজWriter: বাগেরহাট ইনফো নিউজ (1326 Posts)