সর্বশেষ
প্রচ্ছদ / খবর / সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে বাঘ, পিটিয়ে হত্যা

সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে বাঘ, পিটিয়ে হত্যা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাগেরহাট ইনফো ডটকম

সুন্দরবন থেকে লোকালয়ে ঢুকে পড়া একটি বাঘকে (বেঙ্গল টাইগার) পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ জানুয়ারি) সকালে বন সংলগ্ন বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের গুলিশাখালী এলাকায় এই ঘটনা ঘটে। এরআগে বন থেকে প্রায় আড়াই কিলোমিটার লোকালয়ের ভেতরে চলে আসা বাঘটির আক্রমনে অন্তত ৬ জন আহত হন।

আহতদের উদ্ধার করে মোরেলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বন বিভাগ বলছে, পিটিয়ে হত্যা করা নারী বাঘটির আনুমানিক বয়স দুই থেকে আড়াই বছর। লেজসহ এটির দৈর্ঘ্য ছয় ফুট।

হত্যার পর ভিলেজ টাইগার রেসপন্স টিমের (ভিটিআরটি) সদস্যরা উদ্ধারকৃত বাঘটিকে প্রথমে নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে যায়। সেখানে মৃত বাঘটি দেখতে শত শত উৎসুক লোক জড় হয়। পরে বন বিভাগ কর্মীরা বাঘটির মরদেহ চাঁদপাই রেঞ্জের জিউধারা ফরেস্ট স্টেশনে নিয়ে যায়। সেখানে বাঘটির ময়নাতদন্ত শেষে চামড়া ছাড়িয়ে দেহাবশেষ মাটিচাপা দেওয়া হয়।

এই ঘটনায় সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের সদর রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. মেহেদীজ্জামানকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বন বিভাগ। কমিটিকে আগামী ৩ কার্যদিবসের মধ্যে সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের ডিএফও’র কাছে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

নিশানবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুর রহিম বাচ্চু বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৭টার দিকে গুলিশাখালী গ্রামের দুই ব্যক্তি ধান কাটতে মাঠে যান। এসময় ধান ক্ষেতের মাঝে লুকিয়ে থাকা সুন্দরবনের বাঘটি তাদের একজনের উপর আক্রমন করে। মাঠে তাদের চিৎকার শুনে গ্রামবাসী ছুটে এসে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে গিয়ে বাঘের আক্রমণে আরও অন্তত পাঁচজন আহত হন।

খবর পেয়ে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের গুলিশাখালী ফরেস্ট ক্যাম্পের বনরক্ষীরা গ্রামবাসীর সাথে জড়ো হয়ে বাঘটিকে ঘিরে ফেলে এবং পিটিয়ে হত্যা করে। বাঘটি খাবারের সন্ধানে রাতে ভোলা নদী পেরিয়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়ে বলে ধারণা তার।

গুলিশাখালী গ্রামের মিন্টু দলাল বলেন, ‘আমার ছেলে মাসুম দলাল আর আমি ভোরে নাড়া (ধান গাছের গোড়ার অংশ) গেছি মাঢে। আমরা নাড়া কাটি এরমধ্যে কল্লা জাড়ায় দেখি মাঢে ওই বাঘ জাগন দেছে। বাঘ আইয়াই আমার ছেলের চাইপ্পা ধরছে। এরপর চিল্লাচিল্লি কইরা সবাই মিলা ছাড়াইছি। এহন বাঁচে কী না আল্লাহয় জানে।

বাঘের হামলায় আহত মাসুম দলাল, হাউম হাওলাদার, মুজিবর সরদার, সগির সরদার, ইয়াছিন হাওলাদার ও আল আমিন চিকিৎসাধীন রয়েছে।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মাহমুদুল হাসান বাগেরহাট ইনফো ডটকমকে বলেন, সুন্দরবনের চাঁদপাই রেঞ্জের পাশেই মোরেলগঞ্জ উপজেলা অনেকগুলো গ্রাম রয়েছে। লোকালয় ও সুন্দরবনের মাঝ দিয়ে বয়ে গেছে ভোলা নদী। শীত মৌসুমে এই নদীর পানি অনেক কমে যায়। ধারণা করা হচ্ছে সোমবার রাতের কোন এক সময় নদী পেরিয়ে বাঘটি লোকালয়ে ঢুকে পড়ে।

ডিএফও বলেন, মঙ্গলবার ভোর ৬টার দিকে চাঁদপাই রেঞ্জের গুলিশাখালী ক্যাম্পের বন কর্মীদের গ্রামবাসী বাঘ ঢুকে পড়ার খবর দেয়। খবর পেয়ে বনকর্মীরা ঘটনাস্থলে যাওয়ার আগেই বাঘটির হামলায় কয়েকজন আহত হয়। পরে বিক্ষুব্দ গ্রামবাসি বাঘটি পিটিয়ে মেরে ফেলে। এই ঘটনায় মোরেলগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা হবে।

এ ঘটনায় সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের সদর রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. মেহেদীজ্জামানকে প্রধান করে ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটি আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে তার কাছে প্রতিবেদন জমা দিবে বলে জানান তিনি।

সম্প্রতি সুন্দরবন সংলগ্ন বৈদ্যমারী, কাটাখালী, ঘুলিষাখালীসহ বেশ কিছু এলাকায় বাঘের আনাগোনা বেড়ে গেছে বলছে স্থানীয়রা। মাঝে মাঝে বাঘ এসব এলাকায় ঢুকে পড়ছে। সম্প্রতি বাঘ এসব এলাকায় একটি গরু ও একটি মহিস হত্যা করেছে। নিহত বাঘটি খাদ্য-সংকট বা অন্য কোনো কারণে এলাকাচ্যুত হয়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়ত বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এইচ//এসআই/বিআই/২৩ জানুয়ারি, ২০১৮/আপডেট

About বাগেরহাট ইনফো নিউজ