দারিদ্রতার জন্য অনিশ্চিত মেধাবী সাহেরার ভবিষ্যৎ

নিজ ইচ্ছা আর মেধার চমৎকার সমন্বয়ে এসএসসি পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ ৫ পেয়েছে বাগেরহাট জেলার মোরেলগঞ্জের নিভৃত পল্লীর হত দরিদ্র পরিবারের উম্মে সাহেরা।

saheraরামচন্দ্রপুর ইউনিয়নের সিদ্দিকুর রহমান শিকদার ও আকলিমা খাতুনের মেয়ে সাহেরা।

বেসরকারী বিদ্যালয় থেকে অবসরপ্রাপ্ত পিতার আয় দিয়েই চলে তাদের ৬ জনের সংসার। পার্শ্ববর্তী সোনাখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয় হতে ২০১৩ সালে এসএসসি পরীক্ষা দেয় সাহেরা।

বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী সাহেরা উচ্চতর গনীত, ইংরেজীসহ সবকটি বিষয়েই জিপিএ ৫ পেয়েছে। সবমিলিয়ে তার অর্জন গোল্ডেন এ+।

৫ম ও ৮ম শ্রেণিতেও ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছিল এ অদম্য মেধাবী। কিন্তু হতদরিদ্র পিতা মাতার কাছে  এখন “ট্যালেন্টপুল, গোল্ডেন এ+” সবই অর্থহীন। লেখাপড়া চালিয়ে যেতে না পারলে “গোল্ডেন এ+” কি কাজে লাগবে তা সাহেরার পিতা মাতার বোধগম্য নয়।

সাহেরা এখন পিতা মাতার কাছে তার সন্তানের মেধার এখন ধরণের বোঝা। কারণ অভাবের কারনে এখন তার পরিবার আর পারছেনা পড়া-লেখার খরচ চালাতে।

বিজ্ঞান বিভাগ নিয়েই লেখাপড়া করে ভবিষ্যতে ডাক্তার হতে চেয়েছিল উম্মে সাহেরা। কিন্তু এই ইচ্ছা এখন এভারেষ্ট জয়ের চেয়েও কঠিন মনে হচ্ছে সাহেরার কাছে। কোন প্রকার আর্থিক সহযোগীতা না পেলে এখন বন্ধ হবে তার লেখা-পড়া।

উচ্চ শিক্ষার জন্য কারো নিকট থেকে তেমন সহযোগীতা না পেলে অন্তত কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই শ্রম বিকিয়ে যেন বাকী সামনের পথ পাড়িদিতে পারে এতটুকু সহযোগীতা আশা করছে মেধাবী ছাত্রী উম্মে সাহেরা।

৩১-০৫-২০১৩ :: উপজেলা নিউজ করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)