একটি পুলের জন্য ১০ গ্রামের মানুষের চরম দুর্ভোগ

বাগেরহাটের মোড়েলগঞ্জ উপজেলার চিংড়াখালী ইউনিয়নের পশ্চিম ও দক্ষিন চিংড়াখালী গ্রামের সংযোগ খালের পুলটি ভেঙ্গে পড়ায় ১০ গ্রামের মানুষ চরম দুভোগে।

দীর্ঘ ৬ বছর আগে এই পুলটি ভেঙ্গে পড়লেও কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারনে তা পুনঃনির্মান করা হয়নি।

উপজেলার চিংড়াখালী ইউনিয়নের জনগুরুত্বপূর্ণ এই পুলটি দিয়ে প্রতিদিন ১০ গ্রামের হাজার হাজার জনসাধারণ যাতায়াত করে। এই পুলের পাড়ে রয়েছে চিংড়াখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম চিংড়াখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নলভিটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সিংজোড় গোপালপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, চিংড়াখালী সেলিমগড় সিনিয়র মাদ্রাসাসহ রয়েছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ক্লাব, এনজিও, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান, ইউনিয়নের একমাত্র স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও চিংড়াখালী বাজার। এছাড়া পশ্চিম ও দক্ষিন চিড়াখালী, গোপালপুর, সিংজোড়, পত্তাশি, উত্তর চিংড়াখালী, কামলা, রামচন্দ্রপুর, বৌলপুর কুমারখালী।

এই পুল দিয়ে প্রতিদিন বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শত শত ছাত্র-ছাত্রী জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করে। বৃষ্টির সময়ে পুলটি দিয়ে স্কুলগামী শিশুসহ লোকজনকে যাতায়াতে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হয়।

মোড়েলগঞ্জ উপজেলার দৈবজ্ঞহাটী, রামচন্দ্রপুর, বনগ্রাম ও হোগলাপাশা ইউনিয়নের মধ্যবর্তী হচ্ছে চিংড়াখালী ইউনিয়ন। এসব ইউনিয়ন ও পার্শ্ববর্তী  জিয়ানগর  উপজেলার জনসাধারণকে যাতায়াত করতে হয় এই পুলটি দিয়ে।

চিংড়াখালী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মাওলানা আবুল কাসেম জানান, পুলটি নির্মানের জন্য একাধিকবার উপজেলা পরিষদের মাসিক সভায় উত্থাপন করা হয়েছে। এছাড়াও স্থানীয় সাংসদ সদস্যের সুপারিশ নিয়ে জেলা পরিষদে আবেদন করা হয়েছে।

কিন্তু দীর্ঘ ৬ বছরেও কতৃপক্ষের সুদৃষ্টি হয়নি এই পুলটির প্রতি।

০৭ জুলাই ২০১৩ :: রবিউল ইনলাম, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)