ঘূর্ণিঝড় মহাসেন’র প্রভাবে বাগেরহাটে সরকারি অফিসসহ ৫সহস্রাধিক পরিবার পানিবন্দি

ঘূর্ণিঝড় মহাসেন’র প্রভাবে সৃষ্ট ঝড় ও প্রবল বর্ষণে উপকূলীয় উপজেলা বাগেরহাটের শরণখোলায় কাচা ঘরবাড়ি, গাছপালা, মৎস্য ও কৃষির ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় মহাসেন’র প্রভাবে প্রবল বর্ষণে কারণে প্লাবিত শরণখোলা।

ঘূর্ণিঝড় মহাসেন’র প্রভাবে প্রবল বর্ষণে কারণে প্লাবিত শরণখোলার নিম্ন অঞ্চল।

বুধবার বিকেল পাঁচটা থেকে রাত ভর প্রবল বর্ষণে এলাকায় মারাত্মক জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। উপজেলা পোস্ট অফিসসহ পাঁচ সহস্রাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এদিকে, আশঙ্কা কেটে যাওয়ার পর বৃহস্পতিবার দুপুরের পর থেকে ৭৪টি সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় নেয়া প্রায় ২০ সহস্রাধিক লোক ঘরে ফিরতে শুরু করেছেন। আশ্রয়ে থাকা মানুষের অভিযোগ, সরকারিভাবে বা কোনো এনজিও থেকে তাদেরকে কোনো ধরণের শুকনা খাবার ও পানি সরবরাহ করা হয়নি।

বাগেরহাটের শরণখোলা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এ ব্যাপারে সরকারি কোনো বরাদ্দ না থাকায় তারা কোন ব্যাবস্থা নিতে পারেন নি।

উপজেলা কৃষি ও মৎস্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার চারটি ইউনিয়নের ৬০ হেক্টর বোরো ফসল এবং ৪০ হেক্টর আউশের বীজতলা পানির নিচে তলিয়ে গেছে। এছাড়া ৪৫ হেক্টর মুগ, ২০ হেক্টর তিল, ৩ হেক্টর মরিচ ও ১০০ হেক্টর জমির সবজি এবং ১০টি কলা ক্ষেত ও ৫টি পানের বরজ সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

অপরদিকে, ২২ টি চিংড়ি ঘের এবং ১হাজার ২০০টি পুকুর তলিয়ে প্রায় কোটি টাকার মৎস্য সম্পদ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঝড়ে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় শতাধিক কাচা ঘরবাড়ি ও বিভিন্ন প্রজাতির কয়েক হাজার গাছপালা বিধ্বস্ত হয়েছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে, প্রবল বর্ষণে উপজেলা সদর রায়েন্দা বাজার থেকে বান্দাঘাটা পর্যন্ত এলাকার পাঁচ সহস্রাধিক পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। পানিবন্দির শিকার স্থানীয় বাসিন্দা হাজী সেকান্দার আলী তালুকদার, শাহ আলম আকন ও ইব্রাহীম খান জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা উন্নয়নের নামে পানি উন্নয়ন বোর্ডের জলাশয়গুলো একের পর এক বালু দিয়ে ভরাট করার ফলে এলাকার ঘরবাড়িতে পানি উঠে গেছে।

পানি নিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থা না থাকায় এলাকার মানূষ চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।এসব এলাকর রান্নার চুলা পানির নিচে তলিয়ে যাওয়ায় রান্নাবান্নাও করতে পারছেন না দূর্গত এলাকার লোক জন।

রায়েন্দা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান মিলন জানান, এলাকার মানুষ পানিবান্দি হয়ে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন। অপরিকল্পিতভাবে জলাশয় ভরাট করার কারণে এ দুরাবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে উপজেলার সউথ খালির বগিতে অর্ধ শতাধিক ঘর-বাড়ি বিধস্ত হবার খবর পাওয়া গেছে। তবে এখন পর্যন্ত কোন হতা হতের খবর পাওয়া যায় নি।

১৬.০৫.১৩ :: বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।

ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)