স্বামীকে জবাই; স্ত্রীর আত্মহত্যার চেষ্টা

বাগেরহাটের রামপালে ঘুমন্ত স্বামীকে গলা কেটে হত্যার পর নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন হালিমা বেগম (৩১) নামে এক গৃহবধূ।
Rampalশুক্রবার ভোর সোয়া ৫টার দিকে উপজেলার পেড়িখালী ইউনিয়নের সিকিরডাঙ্গা গ্রামের এঘটনা ঘটে।
পারিবারিক কলহের জের ধরে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে পুলিশের ধারণা।
নিহত শেখ সিরাজুল ইসলাম (৩৭) পেশায় দিনমজুর। তিনি সিকিরডাঙ্গা গ্রামের বিলাত শেখের ছেলে। তাদের সোহেল (১৪) ও জান্নাত (৪) নামে দু’টি সন্তান রয়েছে।
পুলিশের ধারণা হয়েছে, অনটনের সংসারে দাম্পত্য কলহের জের ধরেই এ মর্মান্তিক ঘটনা।
রামপাল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী দাউদ হোসেন ছেলে-মেয়ে ও প্রতিবেশীদের বরাত দিয়ে বাগেরহাট ইনফোকে জানান, সোহেল ভোরে ফজরের নামাজ পড়তে বাড়ির পাশে মসজিদে যাওয়ার পর হালিমা ভাত খাওয়ার কথা বলে তার মেয়েকে ঘর থেকে বারান্দায় নিয়ে যান। এরপর রান্নাঘর থেকে বটি নিয়ে ঘরে ফিরে ঘুমন্ত স্বামী সিরাজ শেখকে জবাই করে হত্যার উদ্দেশে তার গলায় একাধিক পোঁচ দেয়।
এসময় সিরাজ রক্তাক্ত অবস্থায় পালাবার চেষ্টা করে ঘরের বাইরে বেরিয়ে আসতেই পাশের ডোবায় পড়ে যান। মসজিদ থেকে বাড়ি ফিরে কিশোর সোহেল তার বাবাকে প্রতিবেশীদের সহায়তায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।
স্বামীকে খুন করার পর নিজেও কীটনাশক/কেরোসিন পান করেন আত্মহত্যার চেষ্টা করে হালিমা।
নিহতের ছেলে সোহেল বাগেরহাট ইনফোকে বলেন, বাবা দিনমজুরের কাজ করে সংসারের খরচ চালাতেন। কিন্তু বাবা যা আয় করতেন তা দিয়ে সংসার ভালভাবে চলত না। এই নিয়ে অভাবের সংসারে বাবার সঙ্গে মায়ের সব সময় ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকত। শুক্রবার ভোরে নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বাড়ি ফিরে দেখি বাবার জবাই করা অবস্থায় পড়ে আছে।
ওসি কাজী দাউদ হোসেন জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বাগেরহাট সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। স্বামীকে হত্যার পর হালিমা নিজেও করে আত্মহত্যার চেষ্টা করে।
হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বটিসহ হালিমাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ প্রহরায় রামপাল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেছে। হালিমাকে আটক দেখান হয়েছে বলে জানান তিনি।
১৫ অক্টোবর ২০১৩ :: নিউজ এডিটর,
বাগেরহাট ইনফো ডটকম।।
এমএম ফিরোজ/এসআইএইচ-নিউজ ডেস্ক/বিআই
ইনফো ডেস্কWriter: ইনফো ডেস্ক (1855 Posts)